সরকার এক তরফা নির্বাচনের ষড়যন্ত্র শুরু করেছে

দিনাজপুর দক্ষিণ সাংগঠনিক জেলা শাখার আমীর ও কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্য জনাব আনোয়ারুল ইসলামকে আজ ১৭ সেপ্টেম্বর বিকাল ৫টায় এবং বি-বাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলা শাখা জামায়াতে ইসলামীর আমীর মাওলানা কুতুব উদ্দিনসহ ৪ জন নেতা-কর্মীকে ১৬ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাতে পুলিশের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারী জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান আজ ১৭ সেপ্টেম্বর প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “রাজনৈতিকভাবে হয়রানি করার হীন উদ্দেশ্যে দিনাজপুর দক্ষিণ সাংগঠনিক জেলা শাখার আমীর ও কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্য জনাব আনোয়ারুল ইসলামকে এবং বি-বাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলা শাখা জামায়াতে ইসলামীর আমীর মাওলানা কুতুব উদ্দিনসহ ৪ জন নেতা-কর্মীকে পুলিশ অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে। আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

আমরা উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি যে, জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকার সারা দেশেই জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের নেতা-কর্মীদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করছে। উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনাব আনোয়ারুল ইসলাম দিনাজপুর-৬ আসনে (বিরামপুর-হাকিমপুর-নবাবগঞ্জ-ঘোড়াহাট) নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন। তাকে নির্বাচন থেকে দূরে সরিয়ে রাখার হীন উদ্দেশ্যেই সরকার তাকে গ্রেফতার করে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে।

এতে প্রতীয়মান হচ্ছে যে, সরকার অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের পরিবর্তে ব্যালট ডাকাতির এক তরফা নির্বাচনের ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। সরকারের কাছে পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে যে, তাদের কোন জনসমর্থন নেই। সে জন্যই তারা আবারও প্রহসনের নির্বাচনের নাটক করার চক্রান্ত শুরু করেছে। সরকারের এ ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সুদৃঢ় জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার জন্য আমি দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

জনাব আনোয়ারুল ইসলামসহ সারা দেশে জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের গ্রেফতারকৃত নেতা-কর্মীদের অবিলম্বে নিঃশর্তভাবে মুক্তি দেয়ার জন্য আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।”

No comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *